মে ২০, ২০২৪ ৭:০৯ পিএম

জাতিসংঘে গাজায় ‘মানবিক বিরতির’ প্রস্তাব পাশ

ইসরায়েল-হামাস যুদ্ধে সাড়া দেয়ার চারটি ব্যর্থ প্রচেষ্টার পর এবার গাজায় সহায়তা পৌঁছাতে ‘মানবিক বিরতির’ প্রস্তাব গ্রহণ করেছে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ। এ প্রস্তাবে অবিলম্বে জিম্মিদের নিঃশর্ত মুক্তিরও আহ্বান জানানো হয়েছে।

বুধবার (১৫ নভেম্বর) মাল্টার উত্থাপিত প্রস্তাবটি নিরাপত্তা পরিষদে গৃহীত হয়ার খবরটি জানিয়েছে আল জাজিরা।

সংবাদ মাধ্যমটির প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, নিরাপত্তা পরিষদের ১৫ সদস্যের মধ্যে প্রস্তাবের পক্ষে ১২টি দেশ ভোট দেয়। ভোটদানে বিরত ছিল যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও রাশিয়া।

প্রস্তাবে জাতিসংঘের বিভিন্ন সংস্থা, রেড ক্রস ও অন্যান্য ‘নিরপেক্ষ’ মানবিক সংগঠনকে ত্রাণ পৌঁছে দেওয়ার সুযোগ করে দিতে পর্যাপ্ত সংখ্যক দিনের জন্য জরুরি ভিত্তিতে বর্ধিত মানবিক বিরতি ও করিডর খুলে দেওয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে।

প্রস্তাবটি পালনে আন্তর্জাতিক আইনি বাধ্যবাধকতা রয়েছে। অবশ্য অতীতে নিরাপত্তা পরিষদের এ ধরনের অনেক আইনি বাধ্যবাধকতা থাকা প্রস্তাব ইসরায়েল মেনে চলেনি।

আল জাজিরার কূটনৈতিক সম্পাদক জেমস বেস বলেছেন, আমি মনে করি এটি ইসরায়েলের উপর অতিরিক্ত চাপ বাড়াবে। বিশেষ করে যুক্তরাষ্ট্র প্রস্তাবটি পাসে বাধা দেয়নি। দেশটি চাইলে ভেটো দিয়ে প্রস্তাবটি আটকে দিতে পারত।

উল্লেখ্য, ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাস গত ৭ অক্টোবর ইসরায়েলে আকস্মিক হামলা চালায়। এতে প্রায় ১ হাজার ২০০ জন ইসরায়েলি নিহত হয়। এ ছাড়া হামাস যোদ্ধারা প্রায় ২৪০ জনকে জিম্মি করে রেখেছে বলে ইসরায়েলের দাবি।

হামাসের হামলার জবাবে ঐ দিন থেকে গাজায় বিরামহীন বর্বর ও পৈশাচিক হামলা চালিয়ে আসছে ইসরায়েল। তাদের নির্বিচার হামলায় গাজায় প্রায় সাড়ে ১১ হাজার মানুষ নিহত হয়েছেন। যাদের আট হাজারের বেশি নারী ও শিশু। এ ছাড়া ইসরায়েলি সর্বাত্মক অবরোধে গাজায় খাবার, পানি ও ওষুধের অভাবে মানবিক বিপর্যয়ের সৃষ্টি হয়েছে।

এনসিএন/বিআর

Facebook
Twitter
LinkedIn
WhatsApp
Email
Print