মে ২০, ২০২৪ ৭:১২ পিএম

বগুড়ায় তীব্র গরমে হাসপাতালে বাড়ছে রোগী

বগুড়ায় তীব্র গরমে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে জনজীবন। অনেকে আক্রান্ত হচ্ছে জ্বর, নিউমোনিয়া, ডায়রিয়ায়। বেশি অসুস্থ হচ্ছে শিশু ও বৃদ্ধরা। তাদের বাড়তি যত্ন নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকরা। পাশাপাশি জ্বর-ঠান্ডার তীব্রতা বেশি হলে দ্রুত হাসপাতালে নিতে বলেছেন।

ঈদের পর থেকেই বগুড়া সরকারি মোহাম্মদ আলী হাসপাতাল ও শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে রোগী বাড়ছে। এ ছাড়া বহির্বিভাগে রোগীর সংখ্যা দ্বিগুণ হয়েছে। ভর্তি রোগীর সংখ্যাও বেড়েছে। মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে শনিবার (২০ এপ্রিল) ১৮ রোগী ভর্তি ছিল। বেশিরভাগই ঠান্ডা ও জ্বরের রোগী।

শজিমেক হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. ওয়াদুদ জানান, তীব্র গরমের কারণে ঈদের পর থেকেই বহির্বিভাগ ও ভর্তি রোগীর সংখ্যা বাড়ছে।

মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা. শফিক আমিন কাজল বলেন, তীব্র গরমে প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের না হওয়াই ভালো। অতি প্রয়োজনে বেরোলে ছাতা ব্যবহারসহ ছায়াযুক্ত স্থানে থাকতে হবে। বেশি করে পানি পানসহ খাবার বিষয়ে লক্ষ রাখতে হবে। শিশু ও বয়স্কদের বিশেষ যত্ন নেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

এদিকে আজ শনিবার বগুড়ায় সর্বোচ্চ ৩৭ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে বলে জানান জেলা আবহাওয়া অফিসের উচ্চ পর্যবেক্ষক শাহ আলম।

তিনি জানান, শনিবার বিকাল ৩টায় জেলায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৭ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। শুক্রবার ছিল ৩৭ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গত সপ্তাহের মঙ্গলবার জেলায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৩৮ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস; যা এ মৌসুমে সর্বোচ্চ তাপমাত্রার রেকর্ড।

তিনি আরও জানান, তাপমাত্রা আরও বাড়তে পারে। এ ছাড়া আপাতত বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই।

Facebook
Twitter
LinkedIn
WhatsApp
Email
Print