মার্চ ২, ২০২৪ ১০:৪২ পিএম

বগুড়ার ৪টি আসনে ১১ জনের প্রার্থিতা বাতিল

বগুড়া-১ (সারিয়াকান্দি-সোনাতলা), বগুড়া-২ (শিবগঞ্জ), বগুড়া-৩ (আদমদিঘী-দুপচাঁচিয়া) ও বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনে মোট ১১ জন প্রার্থিতা বাতিল বলে ঘোষণা করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা।

রোববার (৩ ডিসেম্বর) সকালে মনোনয়ন যাচাই-বাছাইয়ের প্রথম দিনে এসব তথ্য জানান রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক মো. সাইফুল ইসলাম।

যাদের প্রার্থিতা বাতিল করা হয়েছে তারা হলেন-

বগুড়া-১ (সারিয়াকান্দি-সোনাতল) আসনের ন্যাশনাল পিপলস পার্টির প্রার্থী মো. ইবনে সাফি বিন হাবীব।

বগুড়া-২ (শিবগঞ্জ) আসনের ন্যাশনাল পিপলস পার্টির প্রার্থী মো. ইউনূস আলী।

বগুড়া-৩ (আদমদিঘী-দুপচাঁচিয়া) আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী অজয় কুমার সরকার, খাঁন মুহাম্মদ সাইফুল্লাহ্ আল মেহেদী, মো. আফজাল হোসেন, মো. এরশাদুল হক, মো. জাকারিয়া হোসেন, মো. জামিরুল রশীদ তালুকদার, মো. ফেরদৌস স্বাধীন ফিরোজ। তারা সকলই স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে ছিলেন।

বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনে বাংলাদেশ কংগ্রেস পার্টির প্রার্থি ও আলোচিত ইউটিউবার আশরাফুল হোসেন আলম ওরফে হিরো আলম ও ন্যাশনাল পিপলস পার্টির প্রার্থী মো. মনোয়ার জাহিদ।

বাতিল ঘোষণা করা ১১ প্রার্থীর মধ্যে আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলমসহ ১১ জন আপিল করার কথা জানিয়েছেন।

মনোনয়ন বাতিল হওয়ার পর হিরো আলম বলেন, ‘উকিল ভুল করেছে। তবে উকিল ভুল করা মানে আমি ভুল করেছি৷ হিরো আলমের প্রার্থীতা বাতিল নতুন কিছু না। হলফনামায় স্বাক্ষর করিনি। তাঁরা চাইলেই এখানে আমার স্বাক্ষর নিতে পারতো। বাতিল করেছে করুক। ইনশাআল্লাহ হিরো আলম ভোটের মাঠে থাকবে। আমি আবারও আমার প্রার্থীতা ফিরেয়ে আনার চেষ্টা করবো। আমি নির্বাচন কমিশনে আপিল করবো। ওখানে না হলেও হাইকোর্টে যেয়ে প্রার্থিতা ফিরিয়ে আনবো। হিরো আলম ভোটের আছে, ভোটের মাঠে থাকবে।, এর আগে ২০১৮ সালের নির্বাচনেও তার প্রার্থিতা বাতিল করা হয়েছিল। পরে উচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হয়ে তিনি প্রার্থিতা ফিরে পেয়ে নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলেন। এরপর চলতি উপ-নির্বাচনেও হয়েছিলো যেটিও ফিরে এনেছিলাম। এটাও তাই হবে ইনশাআল্লাহ।

এদিকে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও বগুড়ার ডিসি সাইফুল ইসলাম বলেন, যাদের মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে তারা ৫ ডিসেম্বর থেকে ৯ জানুয়ারির মধ্যে নির্বাচন কমিশনে আপিলের সুযোগ পাবেন।

আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এই চারটি আসন থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য ৩০ নভেম্বর নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ৪৮ জনসহ জেলায় মোট ৮৯ জন মনোনয়নপত্র জমা দেন। এরমধ্যে বগুড়া-১ থেকে ৪ আসনে ১১ জনের বাতিল করা হয়। আগামীকাল সোমবার যাচাই-বাচাইয়ের শেষ দিনে বগুড়া-৫, বগুড়া-৬ ও বগুড়া-৭ আসনের যাচাই-বাছাইয়ের ঘোষণা করা হবে।

তফসিল অনুযায়ী আগামীকাল সোমবার পর্যন্ত প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই করা হবে। রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনে আপিল করা যাবে ৫ থেকে ৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত। আপিল নিষ্পত্তি করা হবে ১০ থেকে ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত। বৈধ প্রার্থীরা ১৭ ডিসেম্বরের মধ্যে তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করতে পারবেন। প্রতীক বরাদ্দ হবে ১৮ ডিসেম্বর। নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ৭ জানুয়ারি।

এনসিএন/বিআর

Facebook
Twitter
LinkedIn
WhatsApp
Email
Print