মে ২০, ২০২৪ ৬:৫০ পিএম

৫৯ তে নগর বাউল জেমস

ব্যান্ড সংগীতের দুনিয়ায় জনপ্রিয় শিল্পী জেমসের আজ শুভ জন্মদিন। গানের নেশায় ঘর ছাড়া এ সংগীত শিল্পী দেখতে দেখতে পার করলেন জীবনের ৫৯ তম বসন্ত। এই রকস্টারের জন্ম ১৯৬৪ সালে নওগাঁয়, বড় হয়েছেন চট্টগ্রামে। তার পুরো নাম ফারুক মাহফুজ আনাম জেমস। তবে দেশ ছাড়িয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে নগর বাউল এবং ভক্তদের কাছে ‘গুরু’ নামেও পরিচিত তিনি।

শৈশবেই গানের ভাবনা মগজে ধরে তার। তবে অধিকাংশের মতো তার বাবা-মাও ছেলের এমন ইচ্ছায় সায় দেননি। কিন্তু তাই বলে স্বপ্নের জলাঞ্জলি দিতে নারাজ ছিলেন তিনি। তাই গানের জন্য ছেড়ে দেন ঘরই। গিয়ে ওঠেন চট্টগ্রামের আজিজ বোর্ডিংয়ে। সেখানে থেকেই তার সংগীতের ক্যারিয়ার শুরু। গান পাগল জেমস বন্ধুদের নিয়ে ১৯৮০ সালে প্রতিষ্ঠা করেন ‘ফিলিংস’ নামে একটি ব্যান্ড। হয়ে ওঠেন নগর বাউল।

সাত বছর পর এই ব্যান্ডের হয়ে প্রথম অ্যালবাম ‘স্টেশন রোড’ প্রকাশ করেন। পরের বছর ‘অনন্যা’ শীর্ষক একটি একক অ্যালবাম নিয়ে আসেন তিনি। যা তাকে সংগীত ইন্ডাস্ট্রিতে প্রতিষ্ঠিত করে।

এরপর ১৯৯০ সালে ‘জেল থেকে বলছি’, ১৯৯৬ ‘নগর বাউল’, ১৯৯৮ সালে ‘লেইস ফিতা লেইস’, ১৯৯৯ সালে ‘কালেকশন অব ফিলিংস’ অ্যালবামগুলো প্রকাশ পায়। এরপর ‘ফিলিংস’ ভেঙে জেমস গড়ে তোলেন নতুন লাইনআপে ব্যান্ড ‘নগর বাউল’। এই নামে প্রকাশিত হয় ‘দুষ্টু ছেলের দল’ এবং ‘বিজলি’ নামের দুইটি অ্যালবাম।

জেমসের গাওয়া একক অ্যালবামগুলোর মধ্যে রয়েছে অনন্যা (১৯৮৮), পালাবি কোথায় (১৯৯৫), দুঃখিনী দুঃখ করো না (১৯৯৭), ঠিক আছে বন্ধু (১৯৯৯), আমি তোমাদেরই লোক (২০০৩), জনতা এক্সপ্রেস (২০০৫), তুফান (২০০৬), কাল যমুনা (২০০৯)।

২০০৫ সালে বলিউডে গ্যাংস্টার চলচ্চিত্রে প্লেব্যাক করেন। চলচ্চিত্রে তার গাওয়া ‘ভিগি ভিগি’ গানটি ব্যাপক জনপ্রিয়তা পায় এবং এক মাসেরও বেশি সময় গানটি বলিউড টপচার্টের শীর্ষে ছিল।

২০০৬ সালে আবারও বলিউডের ছবিতে কণ্ঠ দেন। ২০০৭ সালে তিনি ‘লাইফ ইন এ মেট্রো’ চলচ্চিত্রে প্লেব্যাক করেন। চলচ্চিত্রে তার গাওয়া গান দুটি হল রিশতে এবং আলবিদা।

চলচ্চিত্রে সর্বশেষ এই শিল্পীকে ২০১৭ সালে ‘সত্ত্বা’ ছবিতে গাইতে দেখা যায়। এই ছবির ‘তোর প্রেমেতে অন্ধ আমি’ গানটি ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করে এবং সেই বছর জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও অর্জন করে।

এনসিএন/বিআর

Facebook
Twitter
LinkedIn
WhatsApp
Email
Print